ই-পেপার | রবিবার , ১৪ এপ্রিল, ২০২৪
×

পাহাড়তলীর জোড়া খুনের মূল পরিকল্পনাকারী আটক

চট্টগ্রাম মহানগরের পাহাড়তলী এলাকায় কিশোর গ্যাং গ্রুপের আধিপত্য বিস্তারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্যকর ডাবল মার্ডার মামলার মূল পরিকল্পনাকারী ফয়সালকে আটক করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার (১১ মে) ভোর ৪টার দিকে নগরের হালিশহর একটি বাসা থেকে তাকে আটক করা হয় বলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব-৭ এ তথ্য জানায়। আটক মো. ফয়সাল নোয়াখালী জেলার কবিরহাট থানার কবিরহাট সদরের মো. নূর নবীর ছেলে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব জানায়, সোমবার (৮ মে) সন্ধ্যায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামের পাহাড়তলীতে জোড়া খুনের ঘটনা ঘটে। হত্যার ঘটনায় যারা অংশ নিয়েছেন তাদের সবার বয়স ১৬ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে এবং সবাই কিশোর। পাহাড়তলীর কথিত বড় ভাই ইলিয়াছ মিঠুর অনুসারী এসব কিশোর ও তরুণরা চলাফেরা করত বন্ধুর মত। ইলিয়াছকে সবাই বড় ভাই বলে সম্বোধন করত। সিরাজুল ইসলাম শিহাব ও বন্ধু রবিউলের মধ্যে সামান্য ব্যাপার নিয়ে কথা কাটাকাটি ও হালকা মারামারি হয়। ওই ঘটনার মীমাংসা করার কথা বলে দু’পক্ষকে ডেকে রাত আটটায় বৈঠকে বসে ‘বড় ভাই’ ইলিয়াছ। ওই বৈঠকে ইলিয়াছের সামনেই বেদড়ক পিটুনি ও ছুরিকাঘাত করে মাসুম ও সজীব নামে দুই যুবককে খুন করে ফয়সাল ও রবিউল বাহিনী।

উক্ত চাঞ্চল্যকর জোড়া খুনের ঘটনায় নিহত ভুক্তভোগী সজীবের বড় ভাই বাদী হয়ে গত ৯ মে পাহাড়তলী থানায় ১৮ জন নামীয় এবং ১০/১২ জনকে অজ্ঞাতনামা করে একটি হত্যা মামলা দয়ের করে। র‌্যাব আরও জানায়, মামলার পর চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ বিশেষ অভিযানে ইলিয়াস, রবিউলসহ ৮ জনকে গ্রেফতার করে। বাকী আসামীরা পলাতক থাকে।

উল্লেখ্য যে, পুলিশের হাতে আটক ৮ জনের মধ্যে ৪ জনই বিজ্ঞ আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেন এবং সকলের জবানবন্দীতে উক্ত হত্যার ঘটনায় ফয়সালের পূর্বপরিকল্পনার কথা সুস্পষ্ট প্রতীয়মান হয়।

নৃশংস ডাবল হত্যাকাণ্ড মামলার মূল পরিকল্পনাকারী ফয়সাল নগরের হালিশহর এলাকার একটি বাসা বাড়িতে ছদ্মবেশে অবস্থান করছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৭ বৃহস্পতিবার (১১ মে) ভোর ৪টার দিকে অভিযান পরিচালনা করে আসামী মো. ফয়সালকে আটক করা হয়।

র‌্যাবের দাবি, আটক ফয়সাল জিজ্ঞাসাবাদে চাঞ্চল্যকর ডাবল মার্ডার মামলার মূল পরিকল্পনাকারী ছিলো বলে অকপটে স্বীকার করে। আটক আসামীকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।