শিরোনাম :

চট্টগ্রামে জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ


২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ৬:৪০ : অপরাহ্ণ

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য,চট্টগ্রাম মহা নগরীর নায়েবে আমীর ও সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) আলহাজ্ব শাহজাহান চৌধুরীকে কারা ফটক থেকে পুনরায় গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ,আমীরে জামায়াতসহ নেতৃবৃন্দের মুক্তি ও কেয়ারটেকার সরকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে চট্টগ্রামে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বিকেলে নগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী মুহাম্মদ উল্লাহর নেতৃত্বে মিছিলটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে বহদ্দারহাটে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। এতে চট্টগ্রাম নগর ও থানা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশে মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী মুহাম্মদ উল্লাহ বলেন, ‘দেশে মানবাধিকার, কথাবলার অধিকার, আইনের শাসন ও ন্যায় বিচার বলতে কিছু নেই। বর্তমান সরকার সুপ্রিম কোর্টের আদেশ উপেক্ষা করে মিথ্যা মামলা দিয়ে জামায়াতের প্রবীণ নেতা ও জননেতা আলহাজ্ব শাহজাহান চৌধুরীকে কারা ফটক থেকে গ্রেফতার করে ফের প্রমাণ করলো তারা অন্যের বেলায় সংবিধানের দোহাই দিলেও নিজের গদি রক্ষার জন্য জুলুমবাজগণ বিচ্ছিন্ন এ সরকার দেশের সংবিধান, গণতন্ত্র, আইনের শাসনের কিছুই মানেনা। অবিলম্বে তাঁকে মুক্তি দিতে হবে’।

তিনি বলেন, ‘বিগত ১৫ বছর ধরে ক্ষমতাসীন অবৈধ সরকার ধারাবাহিকভাবে জামায়াতের উপর জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে আসছে। জামায়াতে ইসলামীর আমীরসহ শীর্ষ অনেক নেতৃবৃন্দকে দীর্ঘদিন যাবত কারাগারে আটকে রেখেছে। জামায়াতকে নেতৃত্ব শূন্য করার সরকারী সকল প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে’।

তিনি আরো বলেন, ‘জামায়াতেরওপরনির্যাতনচালিয়েএবংআমীরেজামায়াতকে গ্রেফতারকরেবর্তমানআওয়ামী সরকার বাংলাদেশের রাজনৈতিকইতিহাসে এক নিকৃষ্টতমনজির স্থাপনকরেছে। তারাএকদিকে গণতন্ত্র ও নির্বাচনেরকথাবলে, অপরদিকে বিরোধীরাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীদেরকে গ্রেফতারকরেকারাগারেআটকরাখে। প্রকৃতপক্ষে তারাগণতন্ত্রে বিশ্বাসকরেনা। মুহাম্মদ উল্লাহবলেন, সংবিধানপরিবর্তনকরেজনগণের দাবি মেনে তাদেরঅধিকারনিশ্চিতকরতেহবে। গণতন্ত্রেরঅপরিহার্য উপাদান নির্বাচনহতেহবে অবাধ ও সুষ্ঠু। সেটাকরতেহলে কেয়ারটেকারসরকারের অধীনে করতে হবে’।

আরো সংবাদ