শিরোনাম :

ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির যাত্রায় বন্দর নগরীর তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা সভায় এফবিসিসিআই`র ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ


১৮ জুলাই, ২০২৩ ৪:৪৩ : অপরাহ্ণ

ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) আসন্ন নির্বাচন উপলক্ষ্যে চট্টগ্রামে প্যানেল পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ‘ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির যাত্রায় বন্দর নগরের তাৎপর্য’ শীর্ষক এ সভা হয় ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ প্যানেলের উদ্যোগে। এসময় ঐক্য পরিষদের ২৩ প্রার্থীকে পরিচয় করিয়ে দেন প্যানেল লিডার মাহবুবুল আলম।

সোমবার (১৭ জুলাই) রাতে চট্টগ্রাম নগরের পাঁচতারকা হোটেল রেডিসন ব্লু তে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম-১১ আসনের এমপি ও চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক সভাপতি এম এ লতিফ বলেন, বাংলাদেশে মোট বিনিয়োগের ৪০ শতাংশ যাচ্ছে চট্টগ্রাম থেকে। মাতারবাড়িতে গভীর সমুদ্রবন্দর হচ্ছে। এটি বাস্তবায়ন হলে ম্যাজিকের মত কাজ করবে। মাতারবাড়ি থেকে বড় বড় জাহাজ সরাসরি ইউরোপ আমেরিকা যেতে পারবে। কাজেই চট্টগ্রাম ছেড়ে যাওয়া জাহাজকে আগের মত বন্দরে বন্দরে ধরনা দেয়ার দিন শেষ।

এম এ লতিফ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মন জয় করায় মাহবুবুল আলমকে এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি মনোনীত করেছেন। তিনি আসলেই একজন যোগ্য নেতৃত্ব। নেতা যোগ্য হলে সবকিছুই এগিয়ে যাবে। যারা বাংলাদেশকে ভিন্ন চোখে দেখে তাদের দৃষ্টি ঠিক রাখতে হবে। তবে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের যারা নেতা হবেন তাদের বলব আপনারা সময়মত কর পরিশোধ করবেন। এমন কোন কাজ করবেন না যাতে একজনের কারণে সকল ব্যবসায়ী ছোট হন।

সরকারী কর্মচারীদের হুঁশিয়ারি করে এ নেতা বলেন, কিছু কিছু আমলা যারা সরকারের কর্মচারি তারা ব্যবসায়ীদের ঠিকমত সম্মান করেন না। অথচ দেশের অথনীতিতে এদের কোন অবদান নেই। ব্যবসায়ীদের ছোট করে দেখার দিন শেষ। যারাই ব্যবসায়ীকে খাটো করবে চট্টগ্রাম চেম্বার, এফবিসিসিআই ও সারাদেশের ব্যবসায়ীরা ওই কর্মচারীর অফিস ঘেরাও করবে।

সভার আয়োজক চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি ও এফবিসিসিআই নির্বাচনে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের প্যানেল লিডার মাহবুবুল আলম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বের কারণে একদিনের জন্য হরতাল হয়নি। একদিনের জন্য বন্দর বন্ধ হয়নি। রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার কারণে ব্যবসায়ীরা সুন্দরভাবে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারছেন। আমাকে দায়িত্ব নিতে দেন। আপনারা যে সমস্যার কথা বলেছেন, আমি প্রতিটা সমস্যার সমাধান করব। তবে আমাদের প্রধান কাজ হল ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ককে সম্প্রসারণ করা।

চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র সহ-সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন বলেন, আজ আমরা খুবই আনন্দিত। ৩৪ বছর পর চট্টগ্রাম থেকে সভাপতি পেল এফবিসিসিআই। টানা পাঁচবার চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এখন শুধু চট্টগ্রাম নয়, জাতীয় পর্যায়ের নেতা হতে যাচ্ছেন মাহবুবুল আলম। কাজেই শুধু মাহবুবুল আলম নয়, আসন্ন এফবিসিসিআই নির্বাচনে মাহবুবুল আলমের অধীনে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদে যারা প্রার্থী হয়েছেন সবাইকে জয়ী করতে হবে। এরপর চট্টগ্রাম চেম্বার, এফবিসিসিআই ও সরকার সকলেই কাধে কাধ মিলিয়ে আমরা কাজ করব। তবে ব্লু ইকোনমিকে এগিয়ে নিতে কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। অনুরোধ থাকবে এ বিষয়ে কাজ করার। নতুন যারা এফবিসিআইয়ের নেতা হবেন আপনারা সবাই মিলে চট্টগ্রামে ‘ভয়েস অব বিজনেস সামিট’ আয়োজন করবেন। চট্টগ্রামকে সহযোগিতা করবেন।

পিএইচপি গ্রুপের চেয়ারম্যান সুফি মিজানুর রহমান বলেন, শুধু নেতা হলেই হবে না। কেন নেতা হবেন, কাদের জন্য হবেন তা ভাববেন।আপনারা দেশের ব্যবসায়ী নেতা হতে যাচ্ছেন। নিঃস্বার্থভাবে সবার জন্য কাজ করবেন। যাতে ব্যবসায়ের উন্নতি হয়, মানুষের উন্নতি হয়। আমরা কোভিড কে মোকাবেলা করেছি। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকে কেন্দ্র করে হওয়া সংকটও মোকাবেলা করতে পারব। সবাই মিলে কাজ করে সোনার বাংলাকে হীরার বাংলায় রুপান্তর করতে হবে।

বিজিএমইএ প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, চট্টগ্রাম বাংলাদেশের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। চট্টগ্রাম বাংলাদেশের অর্থনীতির একমাত্র হাব। চট্টগ্রামকে দিয়েই এগিয়ে যাবার স্বপ্ন দেখে বাংলাদেশ। বিজিএমইএ বাংলাদেশের অর্থনীতির যোগানদাতা। কর্মসংস্থান বাড়াতে হবে। সেজন্য উদ্যোক্তা, শিল্প কারখানা বাড়াতে হবে। সে লক্ষ্যে কাজ করতে হবে। পাশাপাশি আশা করি বে-টার্মিনালের কাজ যেন দ্রুত এগিয়ে যায় সে লক্ষ্যে কাজ করবেন এফবিসিসিআইয়ের নতুন সভাপতি।

বাংলাদেশ ফ্রেইট ফরওয়ার্ডাস এসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট খায়রুল আলম সুজন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এমন একজন মানুষকে এফবিসিসিআইয়ের অভিভাবক হিসেবে নির্বাচন করেছেন এজন্য আমরা চট্টগ্রামবাসী আনন্দিত। তবে আমাদের দাবি, আমাদের যে মেধাগুলো আছে, সেগুলো কাজে লাগাতে হবে। চট্টগ্রাম ও কাস্টমস ভিত্তিক যে সমস্যাগুলো আছে সেগুলোর সমাধানে কাজ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে ঢাকা, চট্টগ্রাম, ফেনী, কুমিল্লা, নোয়াখালীসহ বিভিন্ন জেলার ব্যবসায়ী প্রতিনিধি, আসন্ন এফবিসিসিআই নির্বাচনে ব্যবসায়ী ঐক্যপরিষদের প্রার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। আগামী ৩১ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে এফবিসিসিআইয়ের নির্বাচন। সে নির্বাচনে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ ও সম্মিলিত পরিষদ প্যানেল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন প্রার্থীরা। তবে সম্মিলিত পরিষদের কোন প্যানেল লিডার না থাকলেও ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ প্যানেলে লিডার হিসেবে আছেন চট্টগ্রামের সন্তান মাহবুবুল আলম।

আরো সংবাদ