শিরোনাম :

চিরনিদ্রায় শায়িত আল্লামা ইয়াহইয়া, জানাজায় মুসল্লিদের ঢল


৪ জুন, ২০২৩ ৪:৩৪ : অপরাহ্ণ

মরহুম আল্লামা শাহ মুহাম্মদ ইয়াহইয়া (রহ.) এর জানাযা নামাজ শনিবার বাদে মাগরীব জামিয়া দারুল উলূম হাটহাজারী মাদ্রাসা চত্বরে লাখো মুসল্লীর উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা মহিবুল্লা বাবুনগরী এ জানাযা নামাজে ইমামতি করেন।

এর আগে গত শুক্রবার রাত দেড়টার দিকে আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারীর মহাপরিচালক আল্লামা মুহাম্মদ ইয়াহইয়া (৭৭) ঢাকার ইউনাইটেড হসপিটালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। পরে ঢাকা থেকে একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ্যাম্বুলেন্স যোগে শনিবার দুপুরের দিকে তাঁর মরদেহ হাটহাজারী মাদ্রাসায় আনা হয়।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার তিনি গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় হাটহাজারী মাদরাসা থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে চট্টগ্রাম নগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাতেই তাকে ঢাকায় নিয়ে ইউনাইটেড হসপিটালের আইসিইউতে ভর্তি করানো হয়েছিলো। গত ১৬ মে আল্লামা ইয়াহইয়া উন্নত চিকিৎসার জন্য ব্যাংকক গিয়েছিলেন । সেখান থেকে চিকিৎসা নিয়ে সম্প্রতি তিনি দেশে ফিরেন।

এদিকে তাঁর মৃত্যু সংবাদ এলাকায় এসে পৌঁছলে ওলামায়ে ক্বেরাম ও মাদ্রার শিক্ষার্থীদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। শনিবার বাদে মাগরিব মাদ্রাসা মাঠে জানাযা শেষে জামিয়া দারুল উলূম হাটহাজারীর নিজস্ব কবরস্থান ‘মাকবারায়ে জামিয়া’য় তাঁকে দাফন করা হয়।

জানাযা নামাজে সাংসদ ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, সাংসদ ড, আবু রেজা মোহাম্মদ নদভীসহ, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এম এ সালাম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উত্তর জেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি এস এম রাশেদুল আলম, উপজেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান নূরুল আলম বাসেক, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা মনি , অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাটহাজারী সার্কেল, ইউ এন ও মোঃ শাহিদুল আলম ও ওসি প্রমূখ।

জানা যায়, আল্লামা মুহাম্মদ ইয়াহইয়া দীর্ঘদিন যাবত কোমরে ব্যথা, হাইপ্রেশার ও বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন। গত কয়েক মাস ধরে তিনি রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। সেখানে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকের পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য ব্যাংকক গিয়েছিলেন।

আল্লামা ইয়াহইয়া হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক হিসেবে ২০২১ সালের ৮ সেপ্টেম্বর দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এর আগে দীর্ঘদিন হেফাজতের কেন্দ্রীয় আমির শাহ আহমদ শফী হাটহাজারী বড় মাদরাসার মহাপরিচালক ছিলেন। ২০২০ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর তার মৃত্যু হলে মাদরাসার প্রধান মুফতি আবদুস সালামকে প্রধান করে একটি পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের ৮ সেপ্টেম্বর মুফতি আবদুস সালামকে মহাপরিচালক ও আল্লামা ইয়াহইয়াকে সহকারী পরিচালক ঘোষণার পরপরই ‍মুফতি আবদুস সালাম অসুস্থ হয়ে পড়েন বৈঠকে। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মুফতি আবদুস সালামের জানাজার পরপরই আল্লামা ইয়াহইয়াকে মহাপরিচালক ঘোষণা করা হয়। এরপর থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মাদ্রাসার দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন ।

আরো সংবাদ